/ Health: Mind & Spirit /

নিমিষেই ঘুম দিন!

নিমিষেই ঘুম দিন!
Hebiro Stuff on September 2, 2016 - 1:20 pm » CATEGORY: Health: Mind & Spirit

শরীরচর্চা, ক্যাফেইন পান না করা, ঘরের পরিবেশ বদলানো, শোবার ব্যবস্থায় পরিবর্তনসহ কতকিছুই না মানুষ করে কেবল রাতের একটু শান্তির ঘুম এর জন্যে। কিন্তু সম্প্রতি জামা ইন্টারনাল মেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণা অনুয়ায়ী, মদ্যপান থেকে বিরত থাকা, নানারকম নিয়ম মেনে চলা, খাবারের ক্ষেত্রে বাছাবাছি করাসহ সর্বসাধারণের কাছে পরিচিত পদ্ধতিগুলো নয়, বরং মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশন বা নিজের চিন্তা-ভাবনার প্রতি মনোযোগ প্রদান করাটাই একজন মানুষকে এনে দিতে পারে শান্তির ঘুম। মাইন্ডফুলনেস বলতে বোঝায় কোনকিছুর প্রতি সমস্ত মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করাকে। এভাবে একজন মানুষ নিজের মস্তিষ্ককে পরিচালনার ক্ষেত্রে কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। আর এই ধারণাকে সামনে রেখেই গবেষকরা ৫০ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের ওপর একটি পরীক্ষা চালান। এদের ভেতরে ২৫ জনকে ঘুম সংক্রাণ্ত সাধারণ নিয়ম, যেমন- মদ্যপান না করা, ঠিক সময়ে ঘুমোতে যাওয়াসহ বিভিন্ন পদ্ধতি অনুসরণ করানো হয়। আর বাকী ২৫ জনকে করতে বলা হয় মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশন। ফলাফল? প্রথম দলটি নয়, বরং পরের মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশনকে অনুসরণ করা দলটিই ঘুমের ক্ষেত্রে লক্ষ্য করে অভাবনীয় পরিবর্তন। অবসাদ, অনিদ্রা আর হতাশা অন্যদের চাইতে ইতিবাচকভাবে কম দেখা যায় এই দলটির ভেতরে। বেশ ভালো ঘুম হয় তাদের।

যেভাবে কাজ করে মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশন
মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশনের ক্ষেত্রে একজন ব্যাক্তি তার বর্তমানের ওপরেই কেবল সমস্ত মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করে থাকেন। তার চিন্তার দুনিয়ায় বর্তমান ছাড়া আর কিছুই স্থান পায়না। না কোন অতীত, না কোন ভবিষ্যত-কেবল বর্তমানকে ঘিরেই চলতে থাকে তার মস্তিষ্কের সমস্ত কার্যক্রম। যে বা যারা রাতের বেলায় না ঘুমোতে পারার যন্ত্রণায় ভুগে থাকেন তাদের ক্ষেত্রে সাধরণত অতীতের কোন বাজে অভিজ্ঞতা কিংবা ভবিষ্যতের করতে যাওয়া কোন কাজের দুঃশ্চিন্তা-এ দুটোই কাজ করে থাকে। মানসিক চাপ বৃদ্ধি পায় আর তৈরি হয় অনিদ্রার। মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশন এই সমস্যাটি দূর করে দেয় পুরোপুরি আর মানসিক চাপ কমিয়ে দিয়ে এনে দেয় স্বস্তি। দূর করে অনিদ্রা, হতাশা আর ব্যথার মতন সমস্যাগুলো।

যেভাবে করবেন মাইন্ডফুল মেডিটেশন
এক্ষেত্রে দুটো ধাপ পেরোতে হবে আপনাকে-

  • নিজেকে শান্ত করার পদ্ধতি খোঁজা
    এটা হতে পারে কোন শব্দ, কোন চিন্তা, কোন গান বা সুর-যেটাই হোকনা কেন খুঁজে বের করুন সেই জিনিসটিকে যেটা আপনাকে শান্ত করে দেয়। ভেতরে এনে দেয় স্বস্তি। আর এমন যদি হয় যে তেমন কোন কিছুই নেই আপনার তালিকায় তাহলে ধীরে ধীরে শ্বাস ভেতরে নিন আর বাইরে বের করুন। এটাও বেশ খানিকটা স্বস্তি এনে দেবে আপনাকে। অন্যদিকে কোন গান বা শব্দ যদি হয় আপনার ভেতরে স্বস্তি এনে দেয়ার উপায় তাহলে বারবার সেই গান, সুর বা শব্দকে শুনুন আর নিজের মাথার ভেতরে গেঁথে নিন।

  • চিন্তাকে একত্রিত করুন
    শ্বাস নেয়ার সময় বা সুর শোনার সময় এমনটা হতেই পারে যে আপনার চিন্তা অন্যকিছুতে চলে গিয়েছে। সেটা বোঝার সাথে সাথেই আবার নিজের সব চিন্তা ভাবনা কেবল বর্তমানে বাজতে থাকা সুর বা নিজের শ্বাস-প্রশ্বাসের ভেতরে কেন্দ্রীভূত করুন। নিজের চিন্তাকে এভাবে একত্রিত করুন আর শান্ত মনে বিছানায় চলে যান।
785 views

0 POST COMMENT

Send Us A Message Here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 − 2 =