/ Travel: Ideas /

ভ্রমণে ক্যাম্পিং

Hebiro Stuff on September 2, 2016 - 1:21 am » CATEGORY: Travel: Ideas

ক্যাম্পিং হল মজা! ভ্রমণের আসল মজাই ক্যাম্পিংয়ে। শহর থেকে বেরিয়ে পড়লেন সব ব্যস্ততা আর দুশ্চিন্তাকে পেছনে ফেলে। মোবাইল বন্ধ করে পাহাড়ের বুকে তাবু টাঙ্গিয়ে, পাশে আগুন জ্বলিয়ে আকাশের দিকে মুখ করে শুয়ে থাকা। পরিষ্কার আকাশ, আকাশ ভরা তারা। ভাবুন তো, আর কিছু কি লাগে জীবনে? অথবা নামলো ঝুম বৃষ্টি। আপনাকে কারও জন্য ভাবতে হচ্ছে না, কেউ ভাবছে না আপনার জন্য। একেবারেই বন্ধনহীন একটা সময়। নাটকীয় হলেও ভাবুন তো-অনুভূতিটা কেমন হবে?

ভ্রমণে ক্যাম্পিং

এবার তাহলে একটা ট্রিপ প্ল্যান করেই ফেলুন। ঠিক করে ফেলুন কোথায় যাবেন। একা যেতে পারেন, যেতে পারেন বন্ধুরা দল বেঁধে। কিন্তু যেহেতু যাচ্ছেন একেবারেই প্রকৃতির কাছে, নাগরিক সব সুবিধা থেকে দূরে, তাই জেনে নিন সাথে কী কী নেবেন আর অবশ্যই কী করবেন, কী করবেন না।

ব্যাগ গোছানো
ব্যাগ হালকা করুন। অপ্রয়োজনীয় কোন জিনিস নেবেন না। আবার প্রয়োজনীয় একটা জিনিস ভুলে যাওয়া আপনাকে অনেক ঝামেলায় ফেলতে পারে। তাই একটা লিস্ট করে ফেলুন। দ্রুত শুকিয়ে যাবে এমন জামাকাপড় নিন। ঢালেঢালা, হালকা কাপড় আপনাকে আরাম দেবে, সাথে সাথে পাহাড়ে ওঠার সময় পায়ের মাসলে টান লাগা বা ঘামে গরমে অস্বস্তি থেকে রক্ষা করবে। গরম কাপড় নিন, কাজে লাগবে।

আগুন জ্বালানো
অবশ্যই ম্যাচ নেবেন। কিন্তু ম্যাচ ভিজে যেতে পারে। তাই লাইটার নিতে পারেন সাথে। সম্পূর্ণ প্রকৃতির উপর নির্ভর না করে দ্রুত আগুণ ধরে এমন কিছু সাথে রাখুন। তুলার প্যাড রাখতে পারেন, কয়লা নিতে পারেন, মোবাইলের ব্যাটারিও আগুন জ্বালাতে কাজে লাগে। অবশ্যই প্রত্যেকটি জিনিস পলিথিনে মুড়ে নিন।
ম্যাচের কাঠি দিয়ে কাঠের স্তূপে আগুন জ্বালানো সময়সাপেক্ষ। কারণ কাঠি বেশিক্ষণ জ্বলে না। একটা সহজ টিপস দেই এক্ষেত্রে। তুলার বলে ভ্যাসলিন মাখিয়ে সেটা এলুমিনিয়াম ফয়েলে মুড়িয়ে ফেলুন। উপর দিয়ে ক্রস করে কাটুন। সেদিক দিয়ে তুলা বের করুন কিছুটা। এবার তুলায় আগুন ধরান। অন্তত ১০ মিনিট জ্বলবে এটি।

খাবার
শুকনো খাবার সাথে নিন। কিন্তু সেটা শুধু সাময়িক ক্ষুধা দূর করে এমন খাবার নয়। খেয়াল রাখুন যেন শক্তি বৃদ্ধি করে, শরীরের লবণ, চিনি বজায় রাখে এমন খাবার সাথে রাখার। কোথাও খাবার ফেলবেন না। আপনার তাবুর ভেতরে বা আশেপাশে খাবার ফেলবেন না।

মশা
পাহাড়ি মশা কিন্তু খুবই ভয়ংকর। অডোমস সাথে রাখুন। মস্কিউটো রিপেলেন্ট স্প্রে সাথে রাখুন। ক্যাম্পিং এ যাওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শে ম্যালেরিয়ার ঔষধ খাওয়া শুরু করুন। আর মশা তাড়াতে প্রাকৃতিক কিছু উপায় ব্যবহার করুন। যেমন ধোঁয়া ধরানো ইত্যাদি।

ঔষধপত্র
কিছু ঔষধ সাথে রাখুন। পেইন কিলার, সেভলন, গ্যাস্ট্রিকের ঔষধ, আপনি নিয়মিত যদি কোন ঔষধ সেবন করেন সেটা- অবশ্যই মনে করে সাথে নিন। রোদ থেকে বাঁচতে সানস্ক্রিন নিন।

টিস্যু
টয়লেট টিস্যু কীভাবে সুরক্ষিত রাখবেন? টিস্যুর সাইজের টিনের কৌটা নিন। কৌটা কেটে টিস্যুর ছেড়া অংশটা বের করে দিন কাটা ফাঁকটা দিয়ে। ব্যাস! আর ভিজবে না, নোংরাও হবে না।

চুলা
রান্নার জন্য এমন চুলা নিন, যা সহজে বহনযোগ্য। ছাঁচে দিয়ে ঝটপট খাবার বানানো যায় এমন চুলা অর্ডার দিয়ে বানিয়ে নিয়ে পারেন। নিউমার্কেটেও এখন নানান রকম বেকিং এর চুলা পাওয়া যায়। শুধু আগুন জ্বালিয়ে এগুলোতে কেক, বিস্কিট করা যায়, খাবার সেদ্ধ করা যায়, রান্নাও করা যায়। বার বি কিউ করতে চাইলে সেই সিস্টেম করে নিতে পারেন।

আলো
আগুণ জ্বলিয়ে রান্না করলেন। কিন্তু আলোর জন্য সবসময় আগুণ জ্বালিয়ে রাখা যাবে না, আবার সবকাজ আগুণ হাতে নিয়ে করাও যাবে না। হেড ল্যাম্প সাথে নিন, টর্চ নিন। নতুন ব্যাটারি নিন। বড় প্লাস্টিকের সাদা বোতলে ছোট্ট টর্চ ঢুকিয়ে দিলে কিন্তু পুরোটাই আলো হয়ে বড় একটা লাইটে পরিণত হবে। নেয়ার সময় কাপড় বা এমন দরকারি কিছু এর ভেতরে ঢুকিয়ে নিলেন। যখন আলোর দরকার তখন জিনিসগুলো বের করে ব্যবহার করলেন।

গান শোনা
এতদূরে সাউন্ড বক্স তো নেয়া যাবে না। সিরামিকের কাপে আপনার মোবাইল, আইপড বা গানশোনার যন্ত্র সেটা যত ছোটই হোক না কেন গান ছেড়ে রেখেই দেখুন। এর চেয়ে বেশী শব্দ নিশ্চয়ই চান না?

দড়ি বাঁধা
নানান উপায়ে দড়ি বাঁধা শিখে যান সফর শুরুর আগেই। সাথে অবশ্যই শক্ত দড়ি নিন। কতভাবে যে দড়ি কাজে দেবে বিপদে না পড়লে বুঝতে পারবেন না।

77 views

0 POST COMMENT

Send Us A Message Here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 − one =