/ Entertainment: Tv Shows /

সেরা রন্ধনশিল্পী ২০১৬ এন্ট্রি শুরু

Hebiro Stuff on September 4, 2016 - 2:40 pm » CATEGORY: Entertainment: Tv Shows

দেশের সুপ্ত রন্ধনশিল্পী প্রতিভা অন্বেষণের লক্ষ্যে টিভি রিয়্যালিটি শো মিজান-মালয়েশিয়ান পাম অয়েল সেরা রন্ধনশিল্পী-২০১৬’ প্রতিযোগিতার কার্যক্রম শুরু হয়েছে । মালয়েশিয়ান পাম অয়েল কাউন্সিল এবং বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেডের ‘মিজান’ ফর্টিফাইড পাম অলিনের পৃষ্ঠপোষকতায় ভ্রমণবিষয়ক পাক্ষিক দি বাংলাদেশ মনিটর এবং জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল এটিএন বাংলা রিয়্যালিটি শো’টি পরিবেশন করছে। অক্টোবর মাসের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে সপ্তাহে দুটি করে মোট ১৩টি পর্বে এটিএন বাংলায় রিয়্যালিটি শো’টি সম্প্রচার করা হবে।

টিভি রিয়্যালিটি শো’র কার্যক্রম উদ্বোধন উপলক্ষে ১ সেপ্টেম্বর রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন দি বাংলাদেশ মনিটর সম্পাদক কাজী ওয়াহিদুল আলম, মালয়েশিয়ান পাম অয়েল কাউন্সিলের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক এ কে এম ফখরুল আলম, বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেডের বিক্রয় ও বিপণন বিভাগ প্রধান শোয়েব মো. আসাদুজ্জামান, এটিএন বাংলার উপদেষ্টা (প্রোগ্রাম) নওয়াজিশ আলী খান, বিক্রয় ও বিপণন উপদেষ্টা এম শামসুল হুদা।

সংবাদ সম্মেলনে টিভি রিয়্যালিটি শো’র জন্য সারাদেশ থেকে আগ্রহী রন্ধনশিল্পীদের কাছ থেকে এন্ট্রি আহ্বান করা হয়েছে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এন্ট্রি পাঠাতে হবে। প্রতিটি এন্ট্রিতে চারজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিকে পরিবেশনযোগ্য বাংলাদেশি মেইন ডিসের একটি রেসিপি, প্রতিযোগীর পাসপোর্ট সাইজ ছবি, প্রতিযোগীর বিভাগের নামসহ পূর্ণ যোগাযোগ ঠিকানা ও তথ্য থাকতে হবে। একজন প্রতিযোগী একাধিক এন্ট্রি পাঠাতে পারবেন। প্রাপ্ত রেসিপির ভিত্তিতে একটি অভিজ্ঞ জুরি কমিটি দেশের সাতটি বিভাগের প্রতিটি থেকে ৭ জন করে প্রতিযোগীকে রিয়্যালিটি শো’তে অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানাবেন। প্রতিটি বিভাগের প্রতিযোগীরা শ্রেষ্ঠত্বের জন্য নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা করবেন। রন্ধনশৈলী ও অন্যান্য বিবেচনায় প্রতিটি বিভাগীয় প্রতিযোগিতা থেকে ২ জনকে পরবর্তী পর্যায়ের জন্য বাছাই করা হবে। দ্বিতীয় পর্বে ৭টি বিভাগের মোট ১৪ জন প্রতিযোগী ২টি গ্রপে প্রতিযোগিতায় অবর্তীর্ণ হবেন। এ পর্যায়ে প্রতিটি গ্রপ থেকে শ্রেষ্ঠ ৩ জনকে পরবর্তী পর্বের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে। এ পর্বে ৬ জন প্রতিযোগী থেকে ৫ জন পরবর্তী পর্বের জন্য নির্বাচিত হবেন। এভাবে চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ৪ জন রন্ধনশিল্পীর মধ্য থেকে সেরা রন্ধনশিল্পী ও দ্বিতীয় সেরা রন্ধনশিল্পী নির্বাচিত করা হবে।

সেরা রন্ধনশিল্পী, প্রথম ও দ্বিতীয় রানার-আপ প্রত্যেকে নগদ অর্থসহ বিভিন্ন আকর্ষণীয় পুরস্কার লাভ করবেন। এ ছাড়াও একজন প্রতিযোগীকে পুষ্টিজ্ঞানের জন্য ‘অধ্যাপিকা সিদ্দিকা কবীর ট্রফি প্রদান করা হবে। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগীও বিভিন্ন পুরস্কার লাভ করবেন। বিভাগীয় প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স-আপকে ক্রেস্ট প্রদান করা হবে।

 

39 views

0 POST COMMENT

Send Us A Message Here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + seventeen =